কারেন্ট বিল কিভাবে কমানো যায়।Bidyut bile komanor upay।বিদ্যুৎ বিল কমানোর দরখাস্ত

কারেন্ট বিল কিভাবে কমানো যায়।Bidyut bile komanor upay।বিদ্যুৎ বিল কমানোর দরখাস্ত tune status


কারেন্ট বিল কিভাবে কমানো যায়

বর্তমান সময়ে বিদ্যুতের মূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে খরচটা অনেক বেড়ে গেছে। আর গরমকালেতো কথাই নেই। অথচ কিছু বুদ্ধি খাটালেই বিদ্যুৎ খরচ বাঁচানো সম্ভব। আর তার জন্য জানতে হবে কিছু কৌশল। তাতে বিদ্যুতের অপচয়ও হবে না আবার মাসের শেষে বিদ্যুৎ বিলটাও গুনতে হবে কম। তাহলে চলুন জেনে নেই

★ জেনে নেয়া যাক তেমনই কিছু কৌশল....

বিদ্যুৎ বিল কমানোর উপায়


১) আপনার বাড়িতে এখনো পুরনো ধাঁচের লাইট বাল্ব থাকলে তা বদলে এনার্জি-সেভার বাল্ব ব্যবহার শুরু করুন। এগুলো ৭৫% পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় করতে পারে তাই আর এদের আয়ুও হয় ছয়গুণ বেশি।

২) দেয়ালের পয়েন্টে আপনি যদি শুধু শুধু একটা চার্জার লাগিয়ে রাখেন তাহলেও কিছু পরিমাণে বিদ্যুৎ খরচ হয়। তাই দরকার না হলে অপচয় করবেন না। ওভেন, ফ্যান, পিসি এসব বন্ধ করে রাখার চেষ্টা করুন। ঘর থেকে বের হওয়ার সময় বাতি, ফ্যান বন্ধ করে রাখার দিকে নজর দিন।

৩) বাড়িতে অনেক সময়ে বিদ্যুৎ সংযোগ খারাপ বা ত্রুটিপূর্ণ হবার কারণেই আপনার বিদ্যুৎ খরচ বেশি হতে পারে। এক্ষেত্রে পেশাদার কোনো ইঞ্জিনিয়ার ডেকে বাড়ির সংযোগ চেক করিয়ে নিন। ত্রুটি থাকলে সারিয়ে ফেলুন।

৪) ওয়াশিং মেশিন, এসি ব্যবহারে প্রচুর পরিমাণে বিদ্যুৎ খরচ হয়ে থাকে। খরচ কমাতে চাইলে ওয়াশিং মেশিনে কখনোই গরম পানির সেটিং ব্যবহার করবেনই না। পানি গরম করতে বেশি বিদ্যুৎ খরচ হয়ে থাকে। আর ওয়াশিং মেশিনের ড্রায়ারে কাপড় শুকানোর বদলে বারান্দা বা ছাদে দড়ি টাঙ্গিয়ে তাতে নেড়ে দেবার ব্যবস্থা করুন।

আড়ো পডুন: নতুন প্লেন মেশিনের দাম

৫) রেফ্রিজারেটরের কয়েল পরিষ্কার রাখলে তা চলতে বেশি বিদ্যুৎ খরচ করে না। বছরে দু`বার করে একে পরিষ্কার করিয়ে নিলে আপনার বিল কম আসবে ও বিদ্যুৎ  কম খরচ হবে।

৬) এসির ফিল্টার পরিষ্কার রাখুন। এটা ময়লা থাকলে তার জন্য 15 শতাংশ পর্যন্ত বেশি বিদ্যুৎ খরচ হতে পারে। তাই এটি সর্বদা পরিস্কার রাখুন।

৭) রান্না করতে করতে বার বার ওভেনের দরজা খুলবেন নাহ। বাইরে থেকেই দেখে বোঝার চেষ্টা করুন। দরজা খুললে তাপমাত্রা কমে যায়। আবার আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে ওভেন বেশি বিদ্যুৎ ব্যয় হয়ে থাকে ।

৮) আমরা টিউব লাইটের ব্যালেষ্ট হিসাবে বেশীর ভাগ ক্ষেত্রেই ইলেকট্রিক্যাল ব্যালেষ্ট ব্যবহার করি। ইলেকট্রিক্যাল ব্যালেষ্ট নিজেই ২৫-৩০ ওয়াট বিদ্যুৎ নষ্ট করে। ইলেকট্রিক্যাল ব্যালেষ্ট না ব্যবহার করে আমরা যদি ভাল মানের ইলেকট্রনিক্স ব্যালেষ্ট ব্যবহার করি তাহলে ১০-১২ ওয়াট এর বেশী বিদ্যুৎ প্রয়োজন পড়বে না। একই ভাবে ফ্যানের রেগুলেটর যদি ইলেকট্রনিক্স রেগুলেটর হয় আপনার অনেক বিদ্যুৎ বিল বেচে যাবেই।

আশা করি পোষ্টা আপনাদের উপকারে আশবে ।কিছু জানার থাকলে আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমাদের  tune status সাথেই থাকবেন ধন্যবাদ ।
Next Post Previous Post
No Comment
Add Comment
comment url